শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:০৫ পূর্বাহ্ন

গরমে বিপর্যয় হয়ে পড়ছে বাঘারপাড়ার জনজীবন,নেই স্বস্থির বাতাস
মোঃ মেহেদী হাসান রিপন //বাঘারপাড়া প্রতিনিধিঃ / ১৬৮ ভিউ
সর্বশেষ আপডেট : শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩

কয়েকদিনের তুলনায় প্রচন্ড গরমে জনজীবন বিপর্যস্থ ও দুর্বিসহ হয়ে ওঠেছে বাঘারপাড়ার জনজীবন । তীব্র গরমে পুড়ছে জনপদ, মাঠ-ঘাট। কোথাও স্বস্তির বাতাস নেই। এখন পর্যন্ত তাপমাত্রা ৩৪°সেলসিয়াস।

সর্বত্র গরম আর গরম, কখনও প্রচন্ড, আবার কখনও ভ্যাপসা গরম। বৈশাখী তান্ডব চলছে জনপদে, সূর্যের প্রখরতা ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। দুপুর হতে না হতেই সড়ক বাজার লোক শুন্য হচ্ছে। একটু প্রশান্তির জন্য গাছতলায় ঠাই নিচ্ছে মানুষ।

অসহনীয় তাপ, রৌদ্রযন্ত্রনা সেই সাথে পানি সঙ্কটে জনজীবনকে আরও এক ধাপ বিপর্যয়ের মুখে নিক্ষিপ্ত করছে। ফসলের মাঠ ফেটে চৌচির, বীজতলা শুকিয়ে যাচ্ছে। পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় টিউবওয়েল যথাযথ পানি উঠছে না।

চারিদিকে কেবল গরম আর গরম। যে গরমে কেবলমাত্র জনজীবনেই অস্থিরতা আনছে না, নানান ধরনের গরমজনিত এবং পানি বাহিত রোগ ছড়িয়ে পড়ছে। প্রচন্ড গরম, আর তাপদাহে জনজীবন বর্তমান সময় খুব বিপর্যয় হয়ে পড়ছে। গরমের অসহনীয় যন্ত্রনায় অতিষ্ঠ জনজীবন। অতি গরম হিটস্টোকের কারণ হিসেবে জানান দিচ্ছেন চিকিৎসকরা।

অতিরিক্ত তাপদাহে মানবদেহে পানি শুন্যতার সৃষ্টি হয়। এক্ষেত্রে ঘামের কারনে এমনটি হয় বিধায় পানি শূন্যতা রোধে খাবার স্যালাইন পান করতে হবে। পানি শূন্যতা মানবদেহের জন্য বিশেষ অসুবিধার কারণ।

আগামী দিনগুলোতে অধিক পরিমান তাপদাহ আসছে, তাপদাহ জনজীবনের দুরবস্থার সব ক্ষেত্রই বিস্তৃত করেছে। বীজতলা সেচের মাধ্যমে উর্বর রাখার চেষ্টা করা হচ্ছে। পুকুরের পানি বৃদ্ধিতে কোথাও কোথায় সেচের সহযোগিতা নেওয়া হলেও অধিকাংশ এলাকায় পানির স্তর নিচে নেমেছে।

সর্বত্র ঘুরে দেখা যাচ্ছে মানুষ একটু ঠান্ডা অনুভবের জন্য ফ্রীজের কোমলপানীয় পান করছে।

কেউ নিজের বাসার ফ্রীজ থেকে ঠান্ডা পানি পান করছে,আবার যাদের ফ্রীজ নাই তারা দোকান থেকে ফ্রীজের কোমল পানি পান করছে।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
জনপ্রিয়
সর্বশেষ