সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২, ০১:৩২ অপরাহ্ন

বাঘায় উপ-সচিব রথীন্দ্রনাথ দত্ত এর মত বিনিময় ।
বাঘা(রাজশাহী)প্রতিনিধি। / ১৬১ ভিউ
সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২

রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় সনাতন ধর্মাবলম্বী শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষ্য মত বিনিময় সভা করছেন মুক্তিযুদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের উপ সচিব ও বাঘা উপজেলার সুসন্তান শ্রী রথীন্দ্রনাথ দত্ত। সোমবার ( ১১ অক্টোবর) সকাল সাড়ে দশটায় বাঘা পৌরসভাধীন নারায়ণপুর নিজ বাসভবনে সুদীজন ও স্থানীয় সংবাদ কর্মী নিয়ে এ মতবিনিময় সভা করেন উপ-সচিব শ্রী রথীন্দ্রনাথ দত্ত।

মত বিনিময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান শফিউর রহমান শফি, বাঘা উপজেলা পূজা মন্ডপ উদযাপন কমিটির সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা সুজিৎ কুমার পান্ডে বাকু, বাঘা প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল লতিব মিয়া, বাংলাদেশ প্রাথমিক প্রধান শিক্ষক সমিতির সভাপতি আনজারুল ইসলাম, বাঘা রিপোটার্স ক্লাবের সভাপতি মহিদুল ইসলাম, বাঘা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান, বাঘা রিপোটার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এম ইসলাম দিলদার, বাঘা উপজেলা মানবাধিকার কমিশনের সাধারণ সম্পাদক শাহিনুর রহমান বাবু, সাংবাদিক ইঞ্জিনিয়ার আক্তার রহমান, ,সাংবাদিক সাজ্জাদ মাহমুদ সুইট, ইলিয়াস ,মাসুম, চারঘাটের খেতাব প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা আলতাব হোসেন, চারঘাট ভায়ালক্ষীপুর বুদিরহাট কলেজের প্রতিষ্ঠাতা আলতাফ হোসেন সহ অধ্যক্ষ ও প্রভাষকবৃন্দ।

উপস্থিত বক্তারা বলেন, উপ-সচিব রথীন্দ্রনাথ দত্ত বাঘা উপজেলার সুসন্তান। তিনি বিভিন্ন সময়ে এলাকার অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। প্রতিদিন কোন না কোন পরিচিত বা অপরিচিত মানুষের সহযোগিতা করেই চলেছেন। তিনি একক ভাবে নিজ অর্থায়নে শাড়ি -কাপড়, খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে আসছেন। হিন্দু-মুসলিম কোন ভেদাভেদ নেই পরিচয় শুধু মানব সেবা। তিনি সুযোগ পেলেই চলে আসেন নিজ জন্মস্থান বাঘাতে। সকল স্তরের মানুষের ঢল নামে এক নজর দেখার জন্য। সমস্যার কথা শুনেন এবং তাঁর জায়গা হতে সহ্যোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন উপ-সচিব রথীন্দ্রনাথ দত্ত। তিনি রাজশাহীর বাঘা নয় দেশের বড় সম্পদে পরিনত হয়েছেন বলেও আখ্যায়িত করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক ভাইচ চেয়ারম্যান শফিউর রহমান শফি।

বাঘা উপজেলা পূজা মন্ডপ উদযাপন কমিটির সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা সুজিৎ কুমার পান্ডে বাকু বলেন, রথীন্দ্রনাথ দত্তের নিজ অর্থায়নে বাঘা উপজেলায় বিভিন্ন উৎসবে কয়েক হাজার মানুষকে শাড়ি কাপড় প্যান্ট পিস থ্রি-পিস উপহার দেওয়া হয়েছে। এবারও তার ধারাবাহিকতায় প্রায় তিন হাজার মানুষের শাড়ি-কাপড়,লুঙ্গী, প্যান্ট পিচসহ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হবে। শুধু হিন্দু ধর্মের মধ্যে নয় মুসলমান পরিবার তাঁর পক্ষ হতে উপহার দেওয়া হয় নিয়মিত ভাবে। তিনি বেশ কিছু ছাত্রীর লিখা পড়ার দায়িত্ব ভাড় তার কাধে নিয়েছিলেন & তাদের লিখা পড়া শেষে ভালো পাত্র দেখে বিয়ে দিয়েছেন তিনি।

উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক অপূর্ব কুমার সাহের সঞ্চালনায় মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথি মুক্তিযুদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের উপ সচিব ও বাঘা উপজেলার সুসন্তান শ্রী রথীন্দ্রনাথ দত্ত বলেন, ধর্মযার যার উৎসব সবার। ২০০৯ সালের আগে সারা দেশে প্রায় নয় হাজার স্থানে পূজা উৎসব হতো। জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরে দিন দিন তা বৃদ্ধি পাচ্ছে বর্তমানে যার পরিমাণ প্রায় ৩৫ হাজার। বাংলাদেশ কে একটি অসম্প্রদায়ীক রাষ্ট্রে পরিনত করতে নির্লস পরিশ্রম করছেন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি আরো বলেন, আমি ধর্ম দেখে নয় মানবতার সেবায় নিজেকে নিয়জিত রাখতে পছন্দ করি & সেই নিতি নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি। এটি আমার বাবার শিক্ষা।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
জনপ্রিয়
সর্বশেষ