শনিবার, ২১ মে ২০২২, ১২:২৫ অপরাহ্ন

মেহেরপুরে এক সপ্তাহের ব্যবধানে আবারো অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী
জাহিদ মাহমুদ মেহেরপুর / ১১৩ ভিউ
সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ২১ মে ২০২২

মেহেরপুরের গাংনীতে এক সপ্তাহের ব্যবধানে আবারো অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে আকমল আলী (৫০) নামের এক গরু ব্যবসায়ী। সে অসুস্থ হয়ে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে। শুক্রবার দুপুরে গাংনী গোল্ডেন এন্টারপ্রাইজ বাসের মধ্যে এ অজ্ঞানের ঘটনা ঘটে। গরু ব্যবসায়ী আকমল আলী গাংনী পৌর এলাকার বাঁশবাড়িয়া গ্রামের পশ্চিমপাড়ার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে। আহত আকমল আলীর ছেলে রকিবুল ইসলাম ড্রাইভার জানান, শুক্রবার দুপুরে তার পিতা আকমল আলী লোকাল বাস গোল্ডেন এন্টারপ্রাইজ যোগে গরু ক্রয় করার জন্য বামন্দি পশু হাটে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে সে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে। পরে বামন্দি বাসস্ট্যান্ডে না নেমে তিনি বাসের মধ্যে গভীর ঘুমে অচেতন হয়ে পড়লে বিষয়টি বাসের কন্ট্রাকটর ও ড্রাইভারের নজরে আসে। বাসের ড্রাইভার গরু ব্যবসায়ী আকমল আলীকে খলিসাকুন্ডি বাসস্ট্যান্ডে নামিয়ে দেয়। এ সময় আকমল আলীর নিকটে থাকা মোবাইল ফোন থেকে স্থানীয়রা তার ছেলে রকিবুল ইসলামকে খবর দেয়। খবর পেয়ে রকিবুল ইসলাম ও তার আত্মীয়স্বজন খলিসাকুন্ডি থেকে তার পিতার অচেতন দেহ উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। অসুস্থ আকমল আলী অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছিলেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। তার জ্ঞান ফিরে না আসায় ভর্তি রাখা হয়েছে। এ সময় তার গোপন পকেটে থাকা ৭০ হাজার টাকা অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা ছিনিয়ে নিয়ে চম্পট দেয়। প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহে এই দিনে গাংনী পৌর এলাকার সিনেমা হল পাড়ার হুরমত আলী কসাইয়ের ছেলে মহির উদ্দিন একইভাবে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। গাংনী থানা অফিসার ইনচার্জ বজলুর রহমান জানান, সচেতনতায় পারে অজ্ঞান পার্টির খপ্পর থেকে নিজেদেরকে রক্ষা করতে। তিনি আরো জানান, অপরিচিত লোকের দেওয়া কোন কিছু না খেলেই অনেকাংশে এ অজ্ঞান পার্টির খপ্পর থেকে রেহাই পাওয়া যাবে। অসুস্থ ব্যক্তি সুস্থ হলে তার নিকট থেকে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা সম্ভব হবে। তাছাড়া, এ অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের আটকের প্রচেষ্টায় পুলিশ মাঠে রয়েছেন।মেহেরপুর থেকে জাহিদ মাহমুদঃ মেহেরপুরের গাংনীতে এক সপ্তাহের ব্যবধানে আবারো অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে আকমল আলী (৫০) নামের এক গরু ব্যবসায়ী। সে অসুস্থ হয়ে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে। শুক্রবার দুপুরে গাংনী গোল্ডেন এন্টারপ্রাইজ বাসের মধ্যে এ অজ্ঞানের ঘটনা ঘটে। গরু ব্যবসায়ী আকমল আলী গাংনী পৌর এলাকার বাঁশবাড়িয়া গ্রামের পশ্চিমপাড়ার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে। আহত আকমল আলীর ছেলে রকিবুল ইসলাম ড্রাইভার জানান, শুক্রবার দুপুরে তার পিতা আকমল আলী লোকাল বাস গোল্ডেন এন্টারপ্রাইজ যোগে গরু ক্রয় করার জন্য বামন্দি পশু হাটে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে সে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে। পরে বামন্দি বাসস্ট্যান্ডে না নেমে তিনি বাসের মধ্যে গভীর ঘুমে অচেতন হয়ে পড়লে বিষয়টি বাসের কন্ট্রাকটর ও ড্রাইভারের নজরে আসে। বাসের ড্রাইভার গরু ব্যবসায়ী আকমল আলীকে খলিসাকুন্ডি বাসস্ট্যান্ডে নামিয়ে দেয়। এ সময় আকমল আলীর নিকটে থাকা মোবাইল ফোন থেকে স্থানীয়রা তার ছেলে রকিবুল ইসলামকে খবর দেয়। খবর পেয়ে রকিবুল ইসলাম ও তার আত্মীয়স্বজন খলিসাকুন্ডি থেকে তার পিতার অচেতন দেহ উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। অসুস্থ আকমল আলী অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছিলেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। তার জ্ঞান ফিরে না আসায় ভর্তি রাখা হয়েছে। এ সময় তার গোপন পকেটে থাকা ৭০ হাজার টাকা অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা ছিনিয়ে নিয়ে চম্পট দেয়। প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহে এই দিনে গাংনী পৌর এলাকার সিনেমা হল পাড়ার হুরমত আলী কসাইয়ের ছেলে মহির উদ্দিন একইভাবে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। গাংনী থানা অফিসার ইনচার্জ বজলুর রহমান জানান, সচেতনতায় পারে অজ্ঞান পার্টির খপ্পর থেকে নিজেদেরকে রক্ষা করতে। তিনি আরো জানান, অপরিচিত লোকের দেওয়া কোন কিছু না খেলেই অনেকাংশে এ অজ্ঞান পার্টির খপ্পর থেকে রেহাই পাওয়া যাবে। অসুস্থ ব্যক্তি সুস্থ হলে তার নিকট থেকে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা সম্ভব হবে। তাছাড়া, এ অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের আটকের প্রচেষ্টায় পুলিশ মাঠে রয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
জনপ্রিয়
সর্বশেষ