শনিবার, ২১ মে ২০২২, ১১:৩৭ পূর্বাহ্ন

সরিষাবাড়ীতে নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতার ফলাফল নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল
শাকিল আহম্মেদ , সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি : / ১১০ ভিউ
সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ২১ মে ২০২২

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতার ফলাফল নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে। গত শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) কামরাবাদ ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী রেলী ব্রীজ সংলগ্ন ঝিনাই নদীতে অনুষ্ঠিত ফাইনাল নৌকা বাইচের ফলাফলকে কেন্দ্র করে, আজ সন্ধ্যায় পৌরসভার শিমলাবাজার থেকে শুরু করে বাসষ্ট্যান্ড হয়ে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে থানা গেট পর্যন্ত এ বিক্ষোভ মিছিল করা হয়।

জানা যায়, উপজেলার ঐতিহ্যবাহী রেলী ব্রীজ সংলগ্ন ঝিনাই নদীতে ঢাকা কাস্টমস্ এসোসিয়েশনের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শাহজাহান গত শুক্রবার দুপুরে দুই দিনের নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতার উদ্বোধন করেন। প্রথম দিন শেষে ২য় দিন আজ শনিবার চুড়ান্ত প্রতিযোগীতার নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় কামরাবাদ ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান এলিনের সভাপতিত্বে নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান হেলাল। এ সময় অন্যানদের মাঝে আরো উপস্থিত ছিলেন- কামরাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান মুনসর আলী খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুস সালাম জিএস, উপ-দপ্তর সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজু প্রমুখ।

এদিকে নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকারী ও বিক্ষোভ মিছিলের সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার ১ম দিনে সেমিফাইনালে অংশ নিয়ে বড়বাড়ীয়া-ডিগ্রী পাছবাড়ী গ্রামের সোনার বাংলা ও ধারাবর্ষা গ্রামের দিগন্ত নামের নৌকা চুড়ান্ত পর্বে অংশ গ্রহনের যোগ্যতা অর্জন করে। কিন্তু নিয়ম না মেনে আজ শনিবারের চুড়ান্ত প্রতিযোগীতায় পাশ্ববর্তী মেলান্দহ উপজেলার ময়ুরপক্ষী নামে আরো একটি নৌকাকে অংশ গ্রহন করার সুযোগ করে দেয়া হয়। প্রতিযোগীতায় মেলান্দহের ময়ুরপক্ষীকে বিজয়ী হিসেব ঘোষনা দেয়া হয়। এ নিয়ে ওই দুই নৌকার সমর্থকদের উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরে তারা নৌকাবাইচের ফলাফল নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি পৌরসভার শিমলাবাজার থেকে শুরু করে বাসন্ট্যান্ডের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে থানা গেটে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে অংশ নেয়া বিক্ষোভকারীরা নৌকা বাইচের এ ফলাফল মানেনা বলে শ্লোগান দেয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা যুবলীগের প্রচার সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজু বলেন, নিয়ম না মেনে ময়ুরপক্ষী নৌকাকে বাইচে অংশ গ্রহনের সুযোগ করে দেয়া হয়। এতে ওই দুই নৌকার সমর্থকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। ময়ুরপক্ষীকে বিজয়ী ঘোষনা করায় সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে সন্ধ্যায় তারা বিক্ষোভ মিছিল বের করে।

এ ব্যাপারে জানতে চেয়ে নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতার সভাপতি আনিছুর রহমান এলিনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
জনপ্রিয়
সর্বশেষ