রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ১২:০৪ পূর্বাহ্ন

সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন এর ৭৬ তম জন্মদিন
লিটন সরকার বাদল, / ১৮২ ভিউ
সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২

বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের আজ ৭৬ তম জন্মদিন। বরেণ্য এই রাজনীতিক ১৯৪৬ সালের ১ অক্টোবর কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার গয়েশপুর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। খ্যাতিমান এই রাজনীতিবিদ মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, প্রথিতযশা ভূ-বিজ্ঞানী একই সাথে লেখক ও গবেষক।
ড. খন্দকার মোশাররফ দাউদকান্দি হাইস্কুল থেকে ১৯৬২ সালে মেট্রিকুলেশন, চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ থেকে ১৯৬৪ সালে আইএসসি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৬৮ সালে এমএসসি ডিগ্রী লাভ করেন। এরপর ১৯৭০ সালে লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইম্পেরিয়াল কলেজ থেকে এমএসসি, ১৯৭৩ সালে ডিআইসি ডিপ্লোমা এবং ১৯৭৪ সালে লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচ.ডি ডিগ্রী লাভ করেন। ১৯৭৫ সালে বিলাত থেকে দেশে ফিরে পুনরায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত¡ বিভাগে সহকারী অধ্যাপক হিসাবে যোগদান করেন এবং পর্যায়ক্রমে অধ্যাপক পদে উন্নীত হন। ১৯৮৭ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভূতত্ত¡ বিভাগের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবার জন্য তিনি ঢাবি’র শিক্ষকতা থেকে পদত্যাগ করেন।
শিক্ষাজীবনে তিনি ১৯৬৪-৬৫ শিক্ষাবর্ষে ঢাবি’র সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের এজিএস ও ১৯৬৭-৬৮ শিক্ষাবর্ষে হাজী মুহাম্মদ মহসিন হলের ভিপি নির্বাচিত হন। মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে বিশ্ব জনমত গড়ে তুলতে তিনি ১৯৭১-এ বিলাত প্রবাসীদের সংগঠিত করেন এবং ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক হিসেবে বলিষ্ঠ নেতৃত্ব দেন। জাতীয় স্বার্থ রক্ষার আন্দোলনে ড. মোশাররফ সব সময় অগ্রণিভূমিকা পালন করেছেন।

তিনি বিভিন্ন প্রতিহিংসার শিকার হয়ে রাজনৈতিক মামলায় ১৯৮৬, ১৯৯৬, ২০০৭, ২০১২ ও ২০১৪ সালে গ্রেফতার হয়ে প্রায় ৫ বছর কারান্তরীন ছিলেন।
শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আহবানে সাড়া দিয়ে ঢাবি’র এই মেধাবী শিক্ষক ১৯৭৯ সালে বিএনপিতে যোগদান করেন। তিনি বিএনপি’র বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৪ সাল থেকে ড. মোশাররফ বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য পদে অধিষ্ঠিত রয়েছেন। তিনি কুমিল্লা-২ আসন থেকে ৪ বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৯১-’৯৬ সময়ে বিএনপি সরকারের বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রী, ১৬৯৬ সালে স্বল্প মেয়াদে সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং ২০০১-০৬ সময়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী হিসেবে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেন।
ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন উন্নয়নের এক স্বাপ্নিক পুরুষ। তিনি উন্নয়ন ভাবনার রাজনীতিবিদ। তিনি অনগ্রসর দাউদকান্দি, মেঘনা ও তিতাসকে যুগান্তকারী উন্নয়নের মাধ্যমে এগিয়ে নিয়েছেন। তিনি ‘প্লাবণ ভূমিতে মৎস্য চাষ’ পদ্ধতির উদ্ভাবক। এই উদ্ভাবনের মাধ্যমে ড. মোশাররফ বাংলাদেশে মৎস্য খাতের উন্নয়নে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন। ব্যাক্তি জীবনে ড. খন্দকার মোশাররফ ২ পুত্র ও ১ কন্যা সন্তানের জনক।
ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ৭২ তম জন্ম দিন উপলক্ষে বিভিন্ন সংগঠন শুভেচ্ছা জানিয়েছে। নির্বাচনী এলাকায় তারই প্রতিষ্ঠিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের জন্মদিন উদযাপিত হবে। এ ছাড়া ঢাকায় স্ত্রী ছেলে-মেয়ে ও নাতি-নাতনীদের নিয়ে গুলশানের নিজ বাসভবনে ঘরোয়াভাবে জন্মদিন উদযাপিত হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
জনপ্রিয়
সর্বশেষ